কাদের মোল্লার মৃত্যুদণ্ড কার্যকরে আর কোন বাধা নেই: এটর্নি জেনারেল

  • ১২ ডিসেম্বর ২০১৩

বাংলাদেশে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা আবদুল কাদের মোল্লার রায় পুনর্বিবেচনার আবেদন সুপ্রিম কোর্ট খারিজ করে দেওয়ার পর আদালতের লিখিত সিদ্ধান্ত কারা কর্তৃপক্ষের কাছে গিয়ে পৌঁছেছে।

কর্তৃপক্ষ বলছে, এই আদেশ পাওয়ার পর দু'জন ম্যাজিস্ট্রেট কাদের মোল্লার সাথে দেখা করে তিনি রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আবেদন করতে চান কীনা সেবিষয়ে জানতে চেয়েছেন।

কিন্তু এবিষয়ে মি. মোল্লা তাদেরকে কি বলেছেন জানতে চাইলে কারা কর্তৃপক্ষ কিছু বলতে রাজী হয়নি।

সুপ্রিম কোর্টের আদেশের পর কাদের মোল্লার পরিবারের সদস্যরা আজ সন্ধ্যায় আবারও ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে গিয়ে তার সাথে দ্বিতীয়বারের মতো দেখা করেছেন।

কাদের মোল্লার সাথে দেখা করার পর জেল থেকে বেরিয়ে আসছেন তার পরিবারের সদস্যরা

মি. মোল্লার একজন মেয়ে বিবিসি বাংলাকে জানিয়েছেন, তারা নিজের উদ্যোগে কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করে তার পিতার সাথে সাক্ষাৎ করেছেন।

তিনি জানান, মি. মোল্লা প্রণভিক্ষার বিষয়ে তার আইনজীবীদের সাথে কথা বলতে চেয়েছেন।

পুনর্বিবেচনার আবেদন খারিজ

এর আগে বৃহস্পতিবার সকালে মানবতা বিরোধী অপরাধের দায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা আব্দুল কাদের মোল্লার রায় পুনর্বিবেচনার আবেদন খারিজ করে দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট।

প্রধান বিচারপতি মো. মোজাম্মেল হোসেনসহ পাঁচ সদস্যের একটি বেঞ্চ শুনানি শেষে এই আদেশ দেন।

বাংলাদেশের এটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেছেন, এই আদেশের পর মৃত্যুদণ্ড কার্যকরে আইনগত আর কোন বাধা থাকল না। এখন যেকোন সময় এটি কার্যকর করা যেতে পারে। আইসিটি আইন অনুযায়ী এই সাজা বাস্তবায়নে জেলকোড প্রযোজ্য হবে না বলেও তিনি জানান।

তবে মি. মোল্লার আইনজীবি আবদুর রাজ্জাক বলেছেন, আদেশের পূর্ণাঙ্গ অনুলিপি পাওয়ার আগে সাজাটি কার্যকর করা হবে না বলেই তারা আশা করেন। কারণ সেখানে আদালতের পর্যবেক্ষণ থাকবে বলে আশা করছেন। রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা প্রার্থনার সুযোগ মি.মোল্লা নাকচ করেনি বলেই তিনি দাবি করেন।

ফাঁসির স্থগিতাদেশ

এর আগে বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকু জানিয়েছিলেন, মঙ্গলবার মধ্যরাত বারোটার পর কাদের মোল্লার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হবে। মৃত্যুদণ্ড কার্যকরে সব প্রস্তুতিও নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছিল কারা কর্তৃপক্ষ।

আবদুল কাদের মোল্লার পরিবারের সদস্যদের জেলে মঙ্গলবার রাতে তার সাথে দেখাও করেন।

আদালতের আদেশের পর চট্টগ্রামে সহিংসতা

পরে মি. মোল্লার আইনজীবী ব্যারিস্টার আবদুর রাজ্জাক বিবিসি বাংলাকে জানান, তারা চেম্বার বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের সাথে দেখা করে রায় পুনর্বিবেচনা অর্থাৎ রিভিউ-এর আবেদন জমা দেবার পর বিচারপতি হোসেন বুধবার সকাল সাড়ে দশটা পর্যন্ত দণ্ড কার্যকর করা স্থগিত করেন।

সেই সাথে আবেদনটি গ্রহণ করা হবে কিনা, সেটি শুনানির জন্যে বুধবার সকালে সময় নির্ধারণ করা হয়।

বুধবার দুই দফায় শুনানির পর বৃহস্পতিবার সকালে শুনানির জন্যে সময় নির্ধারণ করেন রধান বিচারপতিসহ পাঁচ সদস্যের একটি বেঞ্চ।

অপরাধ

আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত এ বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে আবদুল কাদের মোল্লাকে ১৯৭১ সালে সংঘটিত হত্যা এবং ধর্ষণের অপরাধে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়। কিন্তু যুদ্ধাপরাধের বিচারের দাবিতে গণজাগরণ মঞ্চের নেতৃত্বে গড়ে উঠা আন্দোলনের চাপে পরবর্তীতে সরকার আইন সংশোধনের মাধ্যমে এই রায়ের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে আপীল করে।

সুপ্রিম কোর্টের আপীল বিভাগ পরে আবদুল কাদের মোল্লাকে একই অপরাধে মৃত্যুদণ্ড দেন।

এই খবর নিয়ে আরো তথ্য