নিরাপত্তার কারণে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাথে ক্রিকেট ম্যাচ বাতিল

  • ৮ ডিসেম্বর ২০১৩
বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড বলছে, এই ঘটনায় টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্ট হতে পারে

বাংলাদেশে সফররত ওয়েস্ট ইন্ডিজ অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট দলের খেলোয়াড়েরা নিরাপত্তাজনিত ঝুঁকির কারণে আজ একটি নির্ধারিত ম্যাচ খেলেনি।

বন্দর নগরী চট্টগ্রামের যে হোটেলে দলটি অবস্থান করছে তার কাছেই গতকাল রাতে একটি হাতবোমা বিস্ফোরণের পর দলের পক্ষ থেকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

এই ঘটনা এমন এক সময়ে ঘটল যখন বাংলাদেশ টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জোর প্রস্তুতি নিচ্ছে।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড বলছে, এ যাত্রায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল তাদের সফর বাতিল না করলেও, এ ধরনের ঘটনা আন্তর্জাতিক ক্রিকেট অঙ্গনে, বাংলাদেশের ভাবমূর্তির জন্য একটা হুমকি হয়ে দেখা দিতে পারে।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে আজ বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব ১৯ দলের একদিনের এই আন্তর্জাতিক ম্যাচ হওয়ার কথা ছিল।

গতকাল রাতে চট্টগ্রামের আগ্রাবাদ হোটেল, যেখানে দলটি অবস্থান করছে, তার সামনে একটি হাতবোমা বিস্ফোরিত হয়।

চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের উপ কমিশনার মাসুদুল হাসান বলছেন, ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলটিকে লক্ষ্য করে এই বোমা ছোঁড়া হয়নি।

তিনি এটাকে বিচ্ছিন্ন একটি ঘটনা বলে উল্লেখ করেন।

মি. হাসান জানান, দলটির নিরাপত্তার জন্যে এখন হোটেলের আশেপাশের এলাকাসহ ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ডের কথা অনুযায়ী আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পর্যাপ্ত সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

সাত ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলতে বর্তমানে বাংলাদেশ রয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ অনূর্ধ্ব ১৯ দল।

অবরোধ চলাকালে রাজনৈতিক সহিংসতা

এর আগে প্রথম ম্যাচে ১০৪ রানে সফরকারি দলটিকে হারায় বাংলাদেশ।

আজ দল দুটির মধ্যে দ্বিতীয় ম্যাচ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও নিরাপত্তা ঝুঁকির কারণে দলটি মাঠে নামতে রাজি হয়নি।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক আকরাম খান বলছিলেন, দুই ক্রিকেট বোর্ডের সদস্য এবং আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সাথে এক বৈঠকের পর তাদেরকে নিরাপত্তার বিষয়ে আশ্বস্ত করা হয়।

আজকের বাতিল হয়ে যাওয়া ম্যাচটি আগামীকাল সোমবার হবে বলে তিনি জানিয়েছেন।

এই হাতবোমা বিস্ফোরণের ঘটনা এমন সময়ে ঘটল যখন বাংলাদেশ আসন্ন টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আয়োজক দেশ হিসেবে প্রস্তুতি নিচ্ছে।

টুর্নামেন্টের ১০০ দিন আগে ক্ষণ গণনাও শুরু হয়েছে গত শুক্রবার থেকে।

এ ছাড়াও ২০১৪ সালে এশিয়া কাপ ও বেশ কয়েকটি আন্তর্জাতিক ম্যাচ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

এ প্রেক্ষাপটে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট অঙ্গনে বাংলাদেশ নিয়ে কোন প্রশ্ন উঠতে পারে কিনা –এমন প্রশ্নের জবাবে মি. খান বলেন এসব আন্তর্জাতিক ম্যাচগুলো অবরোধ বা হরতালের আওতামুক্ত থাকে তবে এ ধরণের ঘটনা ঘটলে সেটা বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করবে।

কর্তৃপক্ষ বলছে, বাকি ম্যাচগুলো অপরিবর্তিত আছে

বোমা বিস্ফোরণের এই ঘটনায় উদ্বেগ তৈরি হয় ওয়েস্ট ইন্ডিজে।

পরে দলটির ক্রিকেট বোর্ড তাদের দেশের নাগরিকদের আশ্বস্ত করে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে।

অনূর্ধ্ব ১৯ দলটির খেলোয়াড়দের পরিবারের সাথেও তারা কথা বলে নিরাপত্তা বিষয়টি নিশ্চিত করে বলে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে।

এই দুটো দলের পরবর্তী সবকটি ম্যাচ নির্ধারিত সময়ে অনুষ্ঠিত হবে বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে উভয় দেশের ক্রিকেট বোর্ড।