BBC navigation

মহার্ঘ ভাতায় রাজনীতি নেই: এইচ. টি. ইমাম

সর্বশেষ আপডেট রবিবার, 6 অক্টোবর, 2013 15:13 GMT 21:13 বাংলাদেশ সময়
এইচ. টি. ইমাম, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা

এইচ. টি. ইমাম, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা

বাংলাদেশের কর্মকর্তারা বলছেন, আগামী নভেম্বর মাস থেকেই দেশটির সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারিরা তাদের বেতনের সাথে অতিরিক্ত ২০% হারে মহার্ঘ ভাতা পাবেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোববার এক অনুষ্ঠানে এই মহার্ঘ্য ভাতা দেয়ার সিদ্ধান্তের কথা জানান।

প্রধানমন্ত্রীর জনপ্রশাসন বিষয়ক উপদেষ্টা এইচ. টি. ইমাম জানাচ্ছেন, মহার্ঘ ভাতার হার ২০% নির্ধারণ করা হলেও সর্বনিম্ন ও সর্বোচ্চ বেতনের সীমা বেঁধে দেয়া হয়েছে, এবং এ অনুযায়ী দেশটির ১১ লাখের মতো সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারিদের মাসিক বেতন বৃদ্ধি পাবে সর্বনিম্ন ১৫০০ টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ৬০০০ টাকা পর্যন্ত।

অর্থসচিব ফজলে কবির বিবিসিকে জানিয়েছেন, মহার্ঘ্য ভাতা দিতে গিয়ে এক বছরে সরকারের ব্যয় বাড়বে ৪০০০ কোটি টাকার বেশী।

সরকার এমন এক সময় এই মহার্ঘ্য ভাতা চালু করতে যাচ্ছে যখন বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকারের মেয়াদ একেবারেই শেষের দিকে।

এই প্রেক্ষাপটে প্রশ্ন উঠেছে, এটা কি আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারিদের মধ্যে ক্ষমতাসীন দলের জনপ্রিয়তা বাড়ানোর জন্য করা হচ্ছে?

এইচ. টি. ইমাম বলছেন, গত ক'মাস ধরেই বিষয়টি নিয়ে আলোচনা চলছে। কর্মকর্তা-কর্মচারিদের দাবি, সেই সাথে কয়েক বছর ধরে মূল্যস্ফীতি বৃদ্ধি, সব মিলে মহার্ঘ্য ভাতা দেয়ার এই সিদ্ধান্ত হয়েছে। এখানে কোনও রাজনীতি নেই।

বাংলাদেশে যখনই সরকারি চাকুরিজীবীদের বেতন বাড়ে তখনই দেখা যায় মূল্যস্ফীতির ওপর এর একটা চাপ পড়ে। বিশেষ করে বাজারে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম বেড়ে যায়।

এবারো এমনটি হবে বলে আশংকা রয়েছে।

বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠান বা বিআইডিএস-এর গবেষণা পরিচালক ড. জায়েদ বখ্‌ত বলছেন, এটা নির্বাচনী বছর হওয়ায় এমনিতেই অনুৎপাদনশীল খাতে খরচ বাড়বে। সেই সাথে এই মহার্ঘ্য ভাতার কারণে মূল্যস্ফীতিতে নতুন চাপ তৈরি হবে। কেন্দ্রীয় ব্যাংক অনুৎপাদনশীল খাতে ঋণপ্রবাহ কমিয়ে এবং সংকোচনমূলক মূদ্রানীতি গ্রহণ করে এই সংকট ঠেকাতে পারে।

এখানে উল্লেখ করা যেতে পারে বাংলাদেশে চার বছর আগে একটি পে কমিশনের মাধ্যমে সর্বশেষ সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারিদের বেতন বাড়ানো হয়েছিল।

নিয়মানুযায়ী প্রতি পাঁচ বছর অন্তর একটি পে কমিশন করে এই বেতন মূল্যস্ফীতির সাথে সমন্বয় করার কথা। সে অনুযায়ী নতুন একটি পে কমিশন গঠনের সময়ও চলে এসেছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলছেন, অচিরেই সেই পে কমিশন হচ্ছে এবং এবারের পে কমিশনটি হবে স্থায়ী, যার কাজ হবে প্রতি বছর বেতন সমন্বয় করা।

BBC © 2014 বাইরের ইন্টারনেট সাইটের বিষয়বস্তুর জন্য বিবিসি দায়ী নয়

কাসকেডিং স্টাইল শিট (css) ব্যবহার করে এমন একটি ব্রাউজার দিয়ে এই পাতাটি সবচেয়ে ভাল দেখা যাবে৻ আপনার এখনকার ব্রাউজার দিয়ে এই পাতার বিষয়বস্তু আপনি ঠিকই দেখতে পাবেন, তবে সেটা উন্নত মানের হবে না৻ আপনার ব্রাউজারটি আগ্রেড করার কথা বিবেচনা করতে পারেন, কিংবা ব্রাউজারে css চালু কতে পারেন৻