পারিবারিক কলহেই খুন হন ব্রিটিশ-বাংলাদেশি মহিলা

নিহত রেহানা বেগম পূর্ব লন্ডনের বাসিন্দা

লন্ডন থেকে বাংলাদেশে বেড়াতে যাওয়া এক ব্রিটিশ-বাংলাদেশি মহিলা পারিবারিক কলহের কারণেই নিহত হয়েছেন বলে সন্দেহ করছে বাংলাদেশের পুলিশ। এই ঘটনায় পুলিশ ইতোমধ্যে একজন সন্দেহভাজনকে গ্রেফতার করেছে।

পূর্ব লন্ডনের স্টেপনি গ্রীন এলাকার বাসিন্দা ৪৩ বছর বয়সী রেহানা বেগম শুক্রবার সুনামগঞ্জে খুন হন। প্রথমে তাঁর পরিবারের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছিল স্বর্ণালংকার ডাকাতির জন্য তাঁকে হত্যা করা হয়।

সুনামগঞ্জের পুলিশ সুপার নজরুল হোসেন বিবিসিকে জানান, এটি আসলে একটি পারিবারিক সহিংসতার ঘটনা। রেহানা বেগমের বোনের সঙ্গে পরিবারের আরেক পুরুষ সদস্যের বিয়ে দেয়া হবে এরকম একটি পারিবারিক প্রত্যাশা ছিল। তারা রেহানা বেগমের কাছ থেকে আর্থিক সাহায্যেরও প্রত্যাশা করছিল। তাদের এই প্রত্যাশা পূরণের পথে তারা রেহানা বেগমকে বাধা হিসেবে বিবেচনা করছিল। এ কারণেই রেহানা বেগমকে হত্যা করা হয়।

পুলিশ সুপার নজরুল হোসেন জানান, এই ঘটনায় এখনো পর্যন্ত কোন মামলা হয়নি। তবে নিহতের পরিবারের সদস্যরা যে সন্দেহভাজনদের নাম বলেছেন, তাদের একজনকে তারা গ্রেফতার করেছেন।

রেহানা বেগম গত ১৭ই জুলাই তাঁর স্বামী এবং ১২ বছর বয়সী ছেলেকে নিয়ে বাংলাদেশে ছুটি কাটাতে যান।

ব্রিটেনের ফরেন এন্ড কমনওয়েলথ অফিসের একজন মুখপাত্র জানান, বাংলাদেশে ব্রিটিশ নাগরিক রেহানা বেগমের হত্যার ঘটনা তারা শুনেছেন। নিহতের পরিবারকে তারা এই দুঃসময়ে প্রয়োজনীয় কনসুলার সেবা দিচ্ছেন।