BBC navigation

বাংলাদেশে হরতালের সহিংসতায় পুলিশসহ নিহত ১৬

সর্বশেষ আপডেট রবিবার, 3 মার্চ, 2013 12:45 GMT 18:45 বাংলাদেশ সময়

বাংলাদেশে বিরোধীদলের ডাকা টানা তিনদিনের হরতালের প্রথম দিনে হরতাল সমর্থকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষে এ পর্যন্ত পুলিশসহ ১৬ জনের নিহত হওয়ার খবর জানা গেছে।

বগুড়া, রাজশাহী, জয়পুরহাট, গাজিপুর এবং ঝিনাইদহে পুলিশের সঙ্গে হরতাল সমর্থকদের সংঘর্ষের ঘটনায় মৃত্যুর এই ঘটনা ঘটে।

এর মধ্যে বগুড়ায় নয় জন, রাজশাহীর গোদাগাড়িতে দু'জন, জয়পুরহাটে তিন জন, ঝিনাইদহতে একজন এবং গাজিপুরের শ্রীপুরে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে।

হরতালের শুরুতে রাজধানী ঢাকার কিছু কিছু জায়গায় ককটেল বিস্ফোরনের খবর পাওয়া গেলেও বড় ধরনের সহিংসতার খবর নেই।

ঢাকার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে বিবিসির সংবাদদাতা জানান, রাস্তায় কিছু কিছু যানবাহন চলাচল করলেও আগের হরতালগুলোর সাথে তুলনামুলকভাবে অনেক কম বলেই মনে হচ্ছে। রাজধানীর সবগুলো পয়েন্টেই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ব্যাপক উপস্থিতি রয়েছে।

হরতাল শুরুর প্রথম কয়েক ঘন্টার মধ্যেই বগুড়া এবং রাজশাহীতে পাঁচ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া যায়।

বগুড়ায় সকাল থেকেই সহিংসতা শুরু হয় এবং স্থানীয় পুলিশ থানায় হামলা করা হয়।

শনিবার রাতে রাজশাহীতে ট্রেনে আগুন দেয়া হয়

বগুড়ার এসপি মো. মোজাম্মেল হক বিবিসি বাংলাকে জানান, "হাজার হাজার হরতাল সমর্থকদের দ্বারা শাহজাহানপুর থানা আক্রান্ত হওয়ার পর নিকটবর্তী সেনানিবাস থেকে সেনাসদস্যরা এসে পুলিশের সাথে যোগ দেয় এবং পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে"।

এ মুহুর্তে র‍্যাব, পুলিশ সদস্যদের পাশাপাশি বিজিবি নিরাপত্তার দায়িত্বে রয়েছে।

পুলিশ সুপার আরো জানান, বগুড়া-১ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল মান্নানের বাড়ি, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মমতাজউদ্দিনের বাড়ি ও প্রবীণ সাংবাদিক আমানুল্লাহ খানের বাড়িতে হামলা, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ করে হরতাল সমর্থকরা।

বগুড়া শহরে পরিস্থিতি মোকাবেলায় পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত ১৪৪ ধারা জারি করেছে প্রশাসন।

রাজশাহীর গোদাগাড়ী এলাকায় জামায়াত ও পুলিশের সংঘর্ষে নিহত হয়েছেন দু'জন। রোববার সকালে জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীরা রাজশাহী-চাঁপাইনবাবগঞ্জ মহাসড়কে যান চলাচলে বাধা সৃষ্টি করে।

এ সময় তাদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়। আহতদের মধ্যে আরো ২ জনের অবস্থা আশংকাজনক বলে পুলিশ জানায়। রাজশাহীর গোদাগাড়ীতেও ১৪৪ জারি করা হয়েছে।

জয়পুরহাটের পুলিশ বলছে জেলার, পাঁচবিবি এলাকায় তিনজন নিহত হয়েছে এবং আহত হয়েছে বহু লোক।

হরতালের সমর্থক জামায়াত ও শিবির কর্মীরা পুলিশের ওপর হামলা চালালে পুলিশ গুলি ছোঁড়ে এবং সেখানে হতাহতের ঘটনা ঘটে বলে পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে জয়পুরহাট শহরে এবং পাঁচবিবি এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে।

ঝিনাইদহে হরতাল সমর্তকদের হামলায় হরিণাকুণ্ড থানার ওমর ফারুক নামে একজন কনস্টেবল নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. হাসানুজ্জামান। তিনি বলেন, দায়িত্বরত অবস্থায়তাকে কুপিয়ে হত্যা করে জামায়াত সমর্থক লোকজন।

হরতাল সমর্থকরা এলাকায় বিভিন্ন অফিস-ভবনে ভাংচুর চালালে পুলিশ বাধা দেয় এবং সেসময় হরতালকারীরাদের হামলার মুখে পড়ে। তাদেক আঘাত আরো কয়েকজন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন বলে জানান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার।

নারায়ণগঞ্জে যুবলীগের হরতাল-বিরোধী মিছিল

গাজিপুরের শ্রীপূরের জৈনাবাজার এলাকায় জামায়াতের কর্মীরা কাঠের গুড়ি ফেলে রাস্তা অবরোধ করতে গেছে একটি ট্রাকের ধাক্কায় দলের একজন কর্মী নিহত হন বলে পুলিশ জানিয়েছে।

কুমিল্লার লাকসামে রেললাইন উপড়ে ফেলার খবর পাওয়া গেছে।

এদিকে মানবতাবিরোধী অপরাধীদের সবোর্চ্চ শাস্তির দাবিতে ঢাকার শাহবাগের আন্দোলনকারীরা রাজধানীতে হরতাল বিরোধী মিছিল করে। এছাড়া সরকারি দলের সমর্থকরাও বিভিন্ন স্থানে হরতাল বিরোধী মিছিল করে।

জামায়াতে ইসলামী তার দলের নেতাকর্মীদের হত্যার প্রতিবাদে রবি ও সোমবার টানা ৪৮ ঘণ্টা আর প্রধান বিরোধী দল বিএনপি, তাদের ভাষায় ‘সরকারের হাতে রাজনৈতিক বিরোধীদের গণহত্যার প্রতিবাদে’ সারাদেশে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল ডেকেছে মঙ্গলবার।

এদিকে, জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমির দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর ফাঁসির রায়ের পর দেশব্যাপী সহিংসতা শুরু হয়। গত কয়েকদিনে এসব সংঘর্ষে পুলিশের সদস্যসহ বহু হতাহতের ঘটনা ঘটেছে।

একই ধরনের খবর

BBC © 2014 বাইরের ইন্টারনেট সাইটের বিষয়বস্তুর জন্য বিবিসি দায়ী নয়

কাসকেডিং স্টাইল শিট (css) ব্যবহার করে এমন একটি ব্রাউজার দিয়ে এই পাতাটি সবচেয়ে ভাল দেখা যাবে৻ আপনার এখনকার ব্রাউজার দিয়ে এই পাতার বিষয়বস্তু আপনি ঠিকই দেখতে পাবেন, তবে সেটা উন্নত মানের হবে না৻ আপনার ব্রাউজারটি আগ্রেড করার কথা বিবেচনা করতে পারেন, কিংবা ব্রাউজারে css চালু কতে পারেন৻