BBC navigation

বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলায় শনিবারেও বিক্ষিপ্ত সহিংসতা

সর্বশেষ আপডেট শনিবার, 2 মার্চ, 2013 16:24 GMT 22:24 বাংলাদেশ সময়
dhaka violence

ঢাকার মৌচাক এলাকায় গাড়িতে অগ্নিসংযোগের ঘটনা

বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলা থেকে শনিবারও পুলিশ এবং জামায়াত-শিবির কর্মীদের বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষে অন্তত তিনজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

চট্টগ্রাম কক্সবাজার মহাসড়কের সাতকানিয়া উপজেলায় শনিবার জামায়াত-শিবিরের কর্মীদের সঙ্গে পুলিশের কয়েক ঘন্টা ধরে ব্যাপক সংঘর্ষ হয়েছে। এই ঘটনায় দুজনের প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে।

চট্টগ্রামের পুলিশ সুপার একেএম হাফিজ আকতার বিবিসি বাংলাকে জানান সাতকানিয়ায় চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের ওপর তিনদিন ধরে জামায়াত-শিবির কর্মীরা গাছের গুঁড়ি ফেলে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করেছিল। পুলিশ এই প্রতিবন্ধকতা সরাতে গেলে পুলিশের সঙ্গে জামায়াত শিবির কর্মীদের ৪ থেকে ৫ ঘন্টা সংঘর্ষ চলে। তিনি বলেন, বার বার বলা সত্ত্বেও জামায়াত ও শিবিরের কর্মীরা অবরোধ না সরিয়ে পুলিশকে লক্ষ্য করে ইঁটপাটকেল নিক্ষেপ করলে পুলিশও ছর্‌রা গুলি ছোঁড়ে।

এ ঘটনায় দুজন নিহত এবং বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

satkania violence

সাতকানিয়ায় চট্টগ্রাম কক্সবাজার রোডের ওপর গাছের গুঁড়ি ও আগুন দিয়ে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করা হয়

এদিকে নীলফামারির জলঢাকায় পুলিশ ও জামায়াত-শিবির কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষে একজনের মৃত্যু হয়েছে বলে জেলা প্রশাসন এবং পুলিশ থেকে নিশ্চিত করা হয়েছে।

জলঢাকা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তাপস চন্দ্র পন্ডিত জানান, জলঢাকা থানা থেকে ৪ কিলোমিটার দূরে রাজারহাট এলাকায় চার থেকে পাঁচ'শ লোক ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে মিছিল বের করলে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের সদস্যরা গুলি চালায়। এখানে বিজিবির গুলিতে একজনের মৃত্যুর কথা নিশ্চিত করেন জেলা প্রশাসক আবদুল মজিদ।

উত্তরাঞ্চলে রাজশাহী থেকেও ব্যাপক সংঘর্ষের খবর পাওয়া গেছে। রাজশাহী নগরীর রানীবাজার এলাকায় জামায়াত ইসলামী ও ছাত্রশিবিরের কর্মীরা মিছিল বের করে এক পর্যায়ে পুলিশের ওপর হামলা করে বলে জানান বোয়ালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জিয়াউর রহমান।

"জামায়াত-শিবির কর্মীরা পুলিশের ওপর বৃষ্টির মত পাথর নিক্ষেপ করতে করতে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলিও চালিয়েছে।"

রাজশাহীর বোয়ালিয়া থানার ওসি

রাজশাহীর বোয়ালিয়া থানার ওসি বিবিসি বাংলাকে জানিয়েছেন, ''জামায়াত-শিবির কর্মীরা পুলিশের ওপর বৃষ্টির মত পাথর নিক্ষেপ করতে করতে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলিও চালিয়েছে। পরে পুলিশ রাবার বুলেট ও কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে।''

তিনি জানান পাথরের আঘাতে একজন পুলিশ আহত হয়েছে।

এছাড়া রাস্তা অবরোধের ঘটনা ঘটেছে নোয়াখালি, বান্দরবানসহ বেশ কিছু জেলায়। চট্টগ্রামের সীতাকুন্ডে দুষ্কৃতকারীরা বেশ কয়েকটি ট্রাকে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে বলে পুলিশ নিশ্চিত করেছে।

ওদিকে, বাগেরহাট ও বরিশালে কিছু এলাকায় মন্দিরে অগ্নিসংযোগের ঘটনাসহ হিন্দু সম্প্রদায়ভুক্ত ব্যক্তিদের বাড়িতে আক্রমণের ঘটনা ঘটেছে বলে সেখানকার পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিশ্চিত করা হয়েছে।

সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর হামলার প্রতিবাদে শনিবার সকালে চট্টগ্রামে মানববন্ধন করেছে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ। পরিষদের পক্ষে এক সংবাদ সম্মেলন করে বলা হয় ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের বিশেষ ভাবে লক্ষ্য করে আক্রমণ চালানো হচ্ছে।

সিলেটে সহিংসতা

সিলেটে সহিংসতা

এছাড়াও সিলেট ও কুমিল্লায় বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষ হয়েছে।

রাজধানী ঢাকায় বিএনপি ও জামায়াতের নেতা কর্মীরা ভাংচুর চালিয়ে যানবাহনে অগ্নিসংযোগ করলে পুলিশের সাথে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

শনিবার সারা দেশে সহিংসতায় ৩ জনের মৃত্যুর খবর প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিশ্চিত করা হয়েছে।

এর আগে গতরাতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহিউদ্দিন খান আলমগীর মৃতের সংখ্যা ৩৭ বলে জানান। তবে জামায়াত ইসলামীর ওয়েবসাইটে দুদিনে মৃতের সংখ্যা ৭৫ বলে দাবি করা হচ্ছে।

সম্পর্কিত বিষয়

BBC © 2014 বাইরের ইন্টারনেট সাইটের বিষয়বস্তুর জন্য বিবিসি দায়ী নয়

কাসকেডিং স্টাইল শিট (css) ব্যবহার করে এমন একটি ব্রাউজার দিয়ে এই পাতাটি সবচেয়ে ভাল দেখা যাবে৻ আপনার এখনকার ব্রাউজার দিয়ে এই পাতার বিষয়বস্তু আপনি ঠিকই দেখতে পাবেন, তবে সেটা উন্নত মানের হবে না৻ আপনার ব্রাউজারটি আগ্রেড করার কথা বিবেচনা করতে পারেন, কিংবা ব্রাউজারে css চালু কতে পারেন৻