BBC navigation

বাংলাদেশে যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসির দাবিতে শাহবাগে পঞ্চম দিনের মতো বিক্ষোভ চলছে

সর্বশেষ আপডেট শনিবার, 9 ফেব্রুয়ারি, 2013 18:03 GMT 00:03 বাংলাদেশ সময়
শাহবাগের শপথ: যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসী না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে।

শাহবাগের শপথ: যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসী না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে।

শাহবাগে আজ পঞ্চম দিনের মতো বিক্ষোভ চলছে । রাত দিন টানা বিক্ষোভে হাজার হাজার মানুষ অংশ নিচ্ছেন।

ঢাকার শাহবাগের এ বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে দেশের ভিতরে এবং বাইরে। মঙ্গলবার থেকে শুরু হওয়া এ বিক্ষোভ শুক্রবারের মহাসমাবেশে কার্যত এক বিস্ফোরণে রূপ নেয়।

যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসির দাবিতে রাজধানী ঢাকার শাহবাগে লক্ষাধিক মানুষের এক সমাবেশ থেকে বিক্ষোভকারীরা শপথ নিয়েছেন এই দাবি পূর্ণ না-হওয়া পর্যন্ত তাঁরা রাজপথ ছাড়বেন না।

বিক্ষোভে সামিল হয়ে হাজারে হাজারে মানুষ যুদ্ধাপরাধীদের চরমতম শাস্তির দাবিতে গলা মিলিয়েছেন।

এই তীব্র আবেগ, ক্ষোভ আর জনরোষের বহি:প্রকাশ শুরু হয়েছিল গত মঙ্গলবার বিকেলেই, কিন্তু শুক্রবার মহাসমাবেশে কার্যত তা এক বিস্ফোরণের চেহারা নেয়।

মহাসমাবেশের দিন সকাল থেকেই শাহবাগে অবস্থান নিয়ে ছিলেন হাজার হাজার মানুষ। বেলা বাড়ার সাথে সাথেই বাড়তে থাকে মানুষের সংখ্যা।

শাহবাগ চত্বরে আন্দোলনের মোহনা

শাহবাগ চত্বরে আন্দোলনের মোহনা

বিকেল তিনটায় জাতীয় সঙ্গীতের মধ্য দিয়ে আন্দোলনকারীদের ডাকা মহাসমাবেশ শুরু হওয়ার কিছুক্ষন পরই শাহবাগ পরিণত হয় জনসমুদ্রে।

শাহবাগ মোড় থেকে শুরু করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি, উল্টোদিকে রুপসী বাংলা হোটেল ছাড়িয়ে যায় আন্দোলনে যোগ দিতে আসা মানুষের ঢল।

স্লোগানে স্লোগানে মুখরিত হয়ে ওঠে পুরো শাহবাগ এবং আশেপাশের এলাকা।

আন্দোলনে যোগ দিতে আসা মানুষেরা বলছিলেন, তাদের একটিই দাবি; যুদ্ধাপরাধীদেরকে ফাঁসি দিতেই হবে। বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের বক্তব্যের মাঝেই চলতে থাকে স্লোগান এবং গান।

আর মানুষের হাতে হাতে শোভা পেতে থাকে হাজার হাজার প্ল্যাকার্ড। সেইসব প্ল্যাকার্ডে নানা ভাষায় তারা তুলে ধরেন তাদের দাবির কথা।

নারী-পুরুষ নির্বিশেষে সকল বয়সের মানুষই ছিলেন সেই আন্দোলনে। তবে অধিকাংশই বয়সে তরুণ। আন্দোলনে অনেক মা-বাবা তাদের শিশুসন্তানকেও সঙ্গে এনেছিলেন।

যোগ দিতে আসা মানুষরা বলছিলেন, তাদের দাবি একটিই। সেটা হলো যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসি।

তীব্র আবেগ আর ক্ষোভের প্রকাশ দেখা যায় সমাবেশে।

মহাসমাবেশের শেষে হাজার-হাজার মানুষ একসাথে হাত তুলে শপথ নেন।

আন্দোলনকারীরা বাংলাদেশে জামায়াতে ইসলামীর রাজনীতি নিষিদ্ধ করার জন্য টেকনাফ থেকে তেঁতুলিয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাবার ঘোষণা করেন।

পাশাপাশি জামায়াতে ইসলামীর সাথে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলোকেও বর্জনের ডাক দেয়া হয়।

সন্ধ্যে হতেই শাহবাগের চারপাশে জ্বলে ওঠে হাজার হাজার মোমবাতি আর মশাল। মুহুর্মুহু স্লোগানে তখনো কেঁপে উঠেছে শাহবাগ এলাকা।

আন্দোলনকারীরা শপথ নেন যে, মহাসমাবেশ শেষ হয়ে গেলেও তারা তাদের আন্দোলন চালিয়ে যাবেন এবং দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত তারা শাহবাগেই অবস্থান করবেন।

একই ধরনের খবর

BBC © 2014 বাইরের ইন্টারনেট সাইটের বিষয়বস্তুর জন্য বিবিসি দায়ী নয়

কাসকেডিং স্টাইল শিট (css) ব্যবহার করে এমন একটি ব্রাউজার দিয়ে এই পাতাটি সবচেয়ে ভাল দেখা যাবে৻ আপনার এখনকার ব্রাউজার দিয়ে এই পাতার বিষয়বস্তু আপনি ঠিকই দেখতে পাবেন, তবে সেটা উন্নত মানের হবে না৻ আপনার ব্রাউজারটি আগ্রেড করার কথা বিবেচনা করতে পারেন, কিংবা ব্রাউজারে css চালু কতে পারেন৻