BBC navigation

দিল্লিতে গণধর্ষণের শিকার যুবতীর জীবন 'সংকটাপন্ন'

সর্বশেষ আপডেট শুক্রবার, 28 ডিসেম্বর, 2012 10:55 GMT 16:55 বাংলাদেশ সময়
দিল্লির বিলবোর্ডে ধর্ষণকারীদের জন্য মৃত্যদন্ড দাবি

দিল্লির বিলবোর্ডে ধর্ষণকারীদের জন্য মৃত্যদন্ড দাবি

ভারতের রাজধানী দিল্লিতে সম্প্রতি গণধর্ষণের শিকার ২৩-বছর বয়স্ক যুবতীর জীবন সংকটাপন্ন বলে সিঙ্গাপুরে ডাক্তাররা জানিয়েছেন।

সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে ডাক্তাররা বলছেন, তিনি মস্তিস্কে বড় ধরনের আঘাত পেয়েছেন।

এ’মাসের শুরুর দিকে দিল্লির এক বাসে এই মেডিকেল ছাত্রী গণধর্ষণের শিকার হন, এবং চিকিৎসার জন্য তাকে সিঙ্গাপুর নিয়ে যাওয়া হয়।

ঘটনার প্রতিবাদে দিল্লিতে ব্যাপক বিক্ষোভ হয়। বিক্ষোভের এক পর্যায়ে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ে এবং সংঘর্ষে একজন পুলিশ নিহত হন।

এক বিবৃতিতে মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালের প্রধান নির্বাহী কেলভিন লো বলেন, তিনি বেঁচে থাকার জন্য লড়াই করছেন।

‘’আমাদের ডাক্তারদের পরীক্ষা-নিরীক্ষায় দেখা গেছে, যে সিঙ্গাপুরে স্থানান্তর হবার আগে তার হার্ট এ্যাটাক হবার পাশা-পাশি এখন তার ফুসফুস এবং পেটে প্রদাহ হয়েছে, এবং মস্তিস্কে বড় রকমের আঘাত রয়েছে,’’ কেলভিন লো বলেন।

চাপের মুখে সরকার

দিল্লিতে পুলিশ ছয় জনকে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার করেছে।

কিন্তু বিক্ষোভকারীরা তাতে মোটেই সন্তুষ্ট নন, এবং তারা আরো কঠোর ধর্ষণ-বিরোধী আইন এবং নারীদের নিরাপত্তার দাবি জানিয়েছে।

দিল্লির প্রচন্ড বিক্ষোভের মুখে সরকার বেশ কিছু পদক্ষেপ ঘোষণা করেছে।

সিদ্ধান্তগুলোর একটি হচ্ছে ধর্ষণের অভিযোগে যারা আদালতে দোষী সাব্যস্ত হয়েছে তাদের সকলের ছবি ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা, যাতে তারা জনসমক্ষে হেয় হয়।

ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সুশিল কুমার শিন্দে বলেছেন, ডাক্তারদের পরামর্শ অনুযায়ী যুবতীকে সিঙ্গাপুরে পাঠানো হয়।

এর আগে, দিল্লির গণপরিবহনে নিরাপত্তা বৃদ্ধির জন্য রাতে পুলিশের টহল বাড়ানো, বাস ড্রাইভার এবং হেলপারদের পরিচয় যাচাই, বাসে পর্দা বা রঙ্গীন জানালা নিষিদ্ধসহ কয়েকটি পদক্ষেপের ঘোষণা দেওয়া হয়।

সম্পর্কিত বিষয়

BBC © 2014 বাইরের ইন্টারনেট সাইটের বিষয়বস্তুর জন্য বিবিসি দায়ী নয়

কাসকেডিং স্টাইল শিট (css) ব্যবহার করে এমন একটি ব্রাউজার দিয়ে এই পাতাটি সবচেয়ে ভাল দেখা যাবে৻ আপনার এখনকার ব্রাউজার দিয়ে এই পাতার বিষয়বস্তু আপনি ঠিকই দেখতে পাবেন, তবে সেটা উন্নত মানের হবে না৻ আপনার ব্রাউজারটি আগ্রেড করার কথা বিবেচনা করতে পারেন, কিংবা ব্রাউজারে css চালু কতে পারেন৻