BBC navigation

সীমান্তে প্রেমের পরিণামে ভারতে বন্দী ৫ বাংলাদেশি

সর্বশেষ আপডেট শুক্রবার, 21 ডিসেম্বর, 2012 11:11 GMT 17:11 বাংলাদেশ সময়

ছেলে বাংলাদেশি। মেয়ে ভারতীয়। দুদেশের সীমান্তের দুপারের এই দুজনের প্রেম, তারপর সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে পালিয়ে এসে বিয়ে। কিন্তু পরিণামে পাঁচ বাংলাদেশি এখন বন্দী হয়ে আছেন ভারতে।

বাংলাদেশি লাজু ইসলাম আর ভারতের লাইলি বেগম গত তিন সপ্তাহ ধরে যে অভিজ্ঞতার ভেতর দিয়ে গেছেন তার মধ্যে যেন ঢাকাই চলচ্চিত্রের প্রেম কাহিনীর সব উপাদানই আছে।

লাইলি বেগম আর লাজু ইসলাম এখন বাংলাদেশের লালমনিরহাট জেলার পাটগ্রামের জেলে বন্দী। পাটগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন বিবিসিকে জানিয়েছেন, তাদের দুজনের বিরুদ্ধে যথাক্রমে অবৈধভাবে সীমান্ত অতিক্রম এবং তাতে সহায়তার অভিযোগ আনা হয়েছে।

আর মেয়েকে ফেরত দেয়ার দাবিতে ভারতে লাইলি বেগমের বাবা যে বাংলাদেশিদের আটকে রেখেছিলেন, তারাও এখন সেখানকার বিচার বিভাগীয় হেফাজতে বলে জানা গেছে।

দুই তরুণ-তরুণীর প্রেম বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে যে জটিল পরিস্থিতির সৃষ্টি করেছে, দু দেশের কর্মকর্তারা এখন তার জট ছাড়ানোর চেষ্টা করছেন।

যেভাবে শুরু

বাংলাদেশের ভারত সীমান্তবর্তী জেলা লালমনিরহাটের পাটগ্রাম থানার ঝালন্ডি গ্রামে এখন তোলপাড় চলছে এই ঘটনা নিয়ে। প্রেমিক লাজু ইসলাম এই গ্রামেরই বাসিন্দা।

পুলিশ বলছে, লাজু ইসলাম সীমান্ত পেরিয়ে প্রায়শই ভারতে আসা-যাওয়া করতেন। সেখানে লাইলি বেগমের ভাইয়ের সঙ্গে তিনি ছোট-খাট ব্যবসার কাজও করতেন। একসময় লাইলি বেগমের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক গড়ে উঠে। কিন্তু মেয়ের বাবা এই সম্পর্ক মেনে নিতে রাজী হচ্ছিলেন না।

পাটগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন জানিয়েছেন, ডিসেম্বরের চার তারিখে বাবা-মা কাউকে না জানিয়ে বাংলাদেশে লাজু ইসলামের কাছে পালিয়ে আসেন লাইলি বেগম। এর পর তারা চট্টগ্রামে গিয়ে বিয়ে করেন।

অন্যদিকে ভারতে লাইলি বেগমের বাবা উদ্বিগ্ন হয়ে মেয়েকে ফেরত আনার জন্য নানা চেষ্টা করতে থাকেন। বাংলাদেশের পুলিশের ভাষ্য অনুযায়ী, মেয়ের বাবা সুকৌশলে ছয় বাংলাদেশিকে গত ১৬ই ডিসেম্বর ভারতে নিয়ে আটক করে রাখেন। তিনি মেয়েকে ফেরত না পাওয়া পর্যন্ত এদের ছাড়া হবে না বলে জানান।

পরিবার এবং গ্রামবাসীদের চাপে লাজু ইসলাম এবং লাইলি বেগমকে চট্টগ্রাম থেকে লালমনিরহাটে ফেরত আসতে হয়। তাদের দুজনকে পুলিশের হাতে তুলে দেয়া হয়।

পাটগ্রাম থানার কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন জানান, লাইলী বেগমের নামে অবৈধ অনুপ্রবেশের দায়ে ১৯৫২ সালের বর্ডার কন্ট্রোল আইনে মামলা হয়েছে। আর লাজু ইসলামের বিরুদ্ধে এই অবৈধ অনুপ্রবেশে সহযোগিতার অভিযোগ আনা হচ্ছে।

এদের দুজনেই এখন পাটগ্রামের জেলে বন্দী রয়েছে।

ভারতীয় আদালতে পাঁচ বাংলাদেশি

এদিকে ভারতে আটক বাংলাদেশিদের মধ্যে একজন ইতোমধ্যে বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

তবে অন্য পাঁচ বাংলাদেশি সেখানে এখনো আটক রয়েছে।

ভারতের কুচবিহার জেলার মেখলিগঞ্জ থানার কর্মকর্তা বিশ্বাশ্রয় সরকার বিবিসির অমিতাভ ভট্টশালীকে জানিয়েছেন, এরা অবৈধভাবে ভারতে প্রবেশ করেছিল। খবর পেয়ে পুলিশ তাদের আটক করে।

আজ পাঁচজনকেই আদালতে হাজির করা হয়েছিল। বিচারক তাদের বিচার বিভাগীয় হেফাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন।

সম্পর্কিত বিষয়

BBC © 2014 বাইরের ইন্টারনেট সাইটের বিষয়বস্তুর জন্য বিবিসি দায়ী নয়

কাসকেডিং স্টাইল শিট (css) ব্যবহার করে এমন একটি ব্রাউজার দিয়ে এই পাতাটি সবচেয়ে ভাল দেখা যাবে৻ আপনার এখনকার ব্রাউজার দিয়ে এই পাতার বিষয়বস্তু আপনি ঠিকই দেখতে পাবেন, তবে সেটা উন্নত মানের হবে না৻ আপনার ব্রাউজারটি আগ্রেড করার কথা বিবেচনা করতে পারেন, কিংবা ব্রাউজারে css চালু কতে পারেন৻