BBC navigation

যুক্তরাষ্ট্রে নিহত শিশুদের বয়স ৬ থেকে ৭

সর্বশেষ আপডেট রবিবার, 16 ডিসেম্বর, 2012 02:19 GMT 08:19 বাংলাদেশ সময়

কানেকটিকাটের স্কুলে নিহত শিশুদের প্রতি শ্রদ্ধা

যুক্তরাষ্ট্রের কানেকটিকাট অঙ্গরাজ্যে কর্তৃপক্ষ বলছে, একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শুক্রবারে হামলায় নিহত কুড়িজন শিশুর বয়স ছয় থেকে সাত বছর।

চিকিৎসা বিষয়ক প্রধান পরীক্ষক বলেছেন, তাদের মধ্যে ১২ জন মেয়ে আর আটজন ছেলে। আর প্রাপ্তবয়স্ক যে ছ’জনকে হত্যা করা হয়েছে তাদের সবাই মহিলা।

পুলিশ বলছে যে তারা এমন কিছু তথ্য-প্রমাণ পেয়েছেন যা থেকে হামলার উদ্দেশ্য সম্পর্কে ব্যাখ্যা পাওয়া যেতে পারে।

কানেকটিকাট অঙ্গরাজ্যের চিকিৎসা বিষয়ক প্রধান পরীক্ষক বলছেন, হামলাকারী অ্যাডাম লাঞ্জা রাইফেল দিয়ে গুলি চালালে নিহত সব শিশুদের শরীরেই একাধিক গুলি লেগেছে।

নিউটাউনের স্যান্ডি হুক স্কুলে নিহতদের সবাই মারা গেছে গুলিবিদ্ধ হয়ে। তাদের নামের একটি তালিকাও প্রকাশ করা হয়েছে।

স্কুলের শিশুদের ওপর হামলা চালানোর আগে অ্যাডাম লাঞ্জা তার মাকে হত্যা করে।

প্রাথমকি খবরে বলা হয়েছে যে, হামলার সময় হত্যাকারী দুটো বন্দুক ব্যাবহার করেছে।

নিহতদের মধ্যে ২০জন শিশু যাদের বয়স ৬ থেকে ৭

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, শিশুদের উপর গুলি চালানোর আগে হামলাকারী কিছুই বলেনি এবং পরে সে নিজেকেও গুলি করে হত্যা করেছে।

পুলিশের কর্মকর্তারা বলছেন যে, তারা এমন কিছু তথ্য-প্রমাণ সংগ্রহ করতে পেরেছেন যার ফলে হামলাকারীর উদ্দেশ্য সম্পর্কে জানা সহায়ক হতে পারে।

কানেকটিকাটে পুলিশের মুখপাত্র জে পল ভান্স বলছেন, ‘যে স্কুলে এই অপরাধের ঘটনা ঘটেছে এবং আরো একটি জায়গায় যে অপরাধ হয়েছে, সেখানে তদন্ত কর্মকর্তারা খুব ভালো কিছু তথ্য-প্রমাণ পেয়েছেন যা থেকে পুরো একটি চিত্র পাওয়া যেতে পারে। এবং আরো গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে, এরকম একটি ঘটনা কেনো ঘটলো তার উত্তর জানাও সম্ভব হতে পারে।‘

এই ঘটনার পরপরই প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা আগ্নেয়াস্ত্র দিয়ে অপরাধের ঘটনা প্রতিরোধে কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহণের আহবান জানিয়েছেন।

আবেগে ধরে আসা গলায় মি. ওবামা বলেন যুক্তরাষ্ট্রে এর আগেও এ ধরনের ঘটনা ঘটেছে। এখন এ বিষয়ে পদক্ষেপ নেওয়ার সময়।

বেঁচে যাওয়া শিশুদের সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে

প্রেসিডেন্ট ওবামা বলছেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রে গত কয়েক বছরে এরকম বেশকিছু মর্মান্তিক ঘটনা ঘটেছে। নিউটাউনের স্কুলে, ওরেগনের শপিং মলে, উইসকন্সিনের উপাসনালয়ে, কলোরাডোর সিনেমা হলে, শিকাগো ও ফিলাডেলফিয়ার রাস্তার মোড়ে, অগুন্তিবার এই ঘটনা ঘটেছে, যাতে আমাদের যে কেউই প্রাণ হারাতে পারতো।‘

পুলিশ বলছে, শুক্রবার স্কুলের দুটো কক্ষে হামলা চালিয়ে কয়েক মিনিটের মধ্যেই সবাইকে গুলি করে হত্যা করা হয়।

সংবাদদাতারা বলছেন, যুক্তরাষ্ট্রের সাম্প্রতিক ইতিহাসে এটাই সবচে ভয়াবহ হত্যাকাণ্ড।

এর আগে ২০০৭ সালে ভার্জিনিয়া টেক বিশ্ববিদ্যালয়ে চালানো এক ছাত্রের হামলায় ৩২ জন নিহত এবং আরো বহু মানুষ আহত হয়।

সম্পর্কিত বিষয়

BBC © 2014 বাইরের ইন্টারনেট সাইটের বিষয়বস্তুর জন্য বিবিসি দায়ী নয়

কাসকেডিং স্টাইল শিট (css) ব্যবহার করে এমন একটি ব্রাউজার দিয়ে এই পাতাটি সবচেয়ে ভাল দেখা যাবে৻ আপনার এখনকার ব্রাউজার দিয়ে এই পাতার বিষয়বস্তু আপনি ঠিকই দেখতে পাবেন, তবে সেটা উন্নত মানের হবে না৻ আপনার ব্রাউজারটি আগ্রেড করার কথা বিবেচনা করতে পারেন, কিংবা ব্রাউজারে css চালু কতে পারেন৻