BBC navigation

সাঈদীর মামলায় যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষ

সর্বশেষ আপডেট বৃহষ্পতিবার, 6 ডিসেম্বর, 2012 17:39 GMT 23:39 বাংলাদেশ সময়
delwar hossain sayedee

দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর মামলায় যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষ (ফাইল চিত্র)

বাংলাদেশে মানবতাবিরোধী অপরাধে অভিযুক্ত জামায়াতের নায়েবে আমির দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর মামলায় বিবাদীপক্ষ আজ (বৃহস্পতিবার) ক্লোজিং আর্গুমেন্ট বা শেষ যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেছেন।

এর মধ্যে দিয়ে জামায়াত নেতা মিঃ সাঈদীর বিরুদ্ধে মামলায় ঠিক এক বছরের মাথায় এসে সাক্ষ্য গ্রহণ শেষ হলো।

এর মাধ্যমে এই মামলায় বাদী ও বিবাদী উভয়পক্ষের যুক্তিতর্ক শেষে শুনানির প্রক্রিয়া শেষ হলো।

যুক্তিতর্ক শেষে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইবুনাল বলেছে, সাক্ষ্য প্রমাণ যা এসেছে, তার ভিত্তিতেই আদালত রায় দেবে।

তবে রায়ের জন্য সুনির্দিষ্ট দিনক্ষণ না দিয়ে তিন সদস্যের ট্রাইবুনাল উল্লেখ করেছে, আদালত সুবিধাজনক সময়েই রায় দেবে।

"শুনানিতে বাদীপক্ষের আইনজীবীরা মিঃ সাঈদীর বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণ করতে পারেনি।"

আব্দুর রাজ্জাক, বিবাদীপক্ষের আইনজীবী

বাংলাদেশের স্বাধীনতাযুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে আটকদের মধ্যে এই প্রথম কারও বিরুদ্ধে বিচার কার্যক্রম শেষ হলো।

মি: সাঈদীর পক্ষের আইনজীবী আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, শেষদিনের যুক্তিতর্কে তারা বিচারের আইন নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন। তিনি বলেছেন, ''শুনানিতে বাদীপক্ষের আইনজীবীরা মিঃ সাঈদীর বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণ করতে পারেনি।''

তবে এমন অভিযোগ অস্বীকার করে বাদীপক্ষের আইনজীবীদের মধ্যে অন্যতম সৈয়দ হায়দার আলী বলেছেন, বাংলাদেশের সংসদে পাস হওয়া সংশ্লিষ্ট আইনটিতে অভিযুক্তরা প্রাপ্য সব সুবিধাই পেয়েছেন।

"মি: সাঈদীর বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগই শুনানিতে প্রমাণ করা গেছে।"

সৈয়দ হায়দার আলী, বাদীপক্ষের আইনজীবী

তিনি আরো দাবি করেছেন, ''মি: সাঈদীর বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগই শুনানিতে প্রমাণ করা গেছে।''

জামায়াতের সিনিয়র নায়েবে আমির দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর বিরুদ্ধে ৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে পিরোজপুরে হত্যা, গণহত্যা, ধর্ষণ এবং লুন্ঠনসহ ২০টি অপরাধের অভিযোগ আনা হয়েছে।

জামায়াতে ইসলামীর সিনিয়র নায়েবে আমির মি: সাঈদীকে ২০১০ সালের ২৯শে জুন আটক করা হয়েছিল অন্য একটি মামলায় ধর্মীয় অনুভুতিতে আঘাত দেওয়ার অভিযোগে।

পরের বছর অর্থাৎ ২০১১ সালে ট্রাইবুনাল তার বিরুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগ আমলে নেয়।

মি: সাঈদী আটক রয়েছেন ২০১০সালের ২৯শে জুন থেকে।

মানবতাবিরোধী অপরাধের এই অভিযোগেই জামায়াতের বর্তমান এবং সাবেক আমীরসহ দলটির নয়জন শীর্ষপর্যায়ের নেতা আটক রয়েছেন।

সম্পর্কিত বিষয়

BBC © 2014 বাইরের ইন্টারনেট সাইটের বিষয়বস্তুর জন্য বিবিসি দায়ী নয়

কাসকেডিং স্টাইল শিট (css) ব্যবহার করে এমন একটি ব্রাউজার দিয়ে এই পাতাটি সবচেয়ে ভাল দেখা যাবে৻ আপনার এখনকার ব্রাউজার দিয়ে এই পাতার বিষয়বস্তু আপনি ঠিকই দেখতে পাবেন, তবে সেটা উন্নত মানের হবে না৻ আপনার ব্রাউজারটি আগ্রেড করার কথা বিবেচনা করতে পারেন, কিংবা ব্রাউজারে css চালু কতে পারেন৻