BBC navigation

বাংলাদেশে থ্রিজি মোবাইল সার্ভিস চালু

সর্বশেষ আপডেট রবিবার, 14 অক্টোবর, 2012 15:42 GMT 21:42 বাংলাদেশ সময়
3g

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঢাকায় আজ (রোববার) আনুষ্ঠানিকভাবে থ্রিজি মোবাইল সার্ভিসের উদ্বোধন করেন।

প্রাথমিক পর্যায়ে শুধুমাত্র রাষ্ট্রীয় খাতের টেলিযোগাযোগ প্রতিষ্ঠান টেলিটক পরীক্ষামূলকভাবে বাণিজ্যিক ভিত্তিতে আধুনিক এই মোবাইল প্রযুক্তি চালু করছে।

টেলিটকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মুজিবর রহমান বিবিসিকে বলেছেন, আপাতত বৃহত্তর ঢাকায় তাদের চার থেকে পাঁচ লক্ষ গ্রাহক এই সেবা পাবেন। পর্যায়ক্রমে সারা দেশে এই সেবা তারা বিস্তৃত করবেন।

থ্রিজি প্রযুক্তি চালু হওয়ার ফলে এর গ্রাহকরা আরও দ্রুতগতিতে তাদের মোবাইল ফোনে ইন্টারনেট সেবা পাবেন।

টেলিটক আশা করছে এই সেবার কারণে সারাদেশে তাদের গ্রাহক সংখ্যা বেড়ে ৬৫ লাখের মত দাঁড়াবে।

বাংলাদেশে এই মুহূর্তে মোবাইল ফোন গ্রাহকের সংখ্যা ছয় কোটি ছাড়িয়ে গেছে। টেলিটকের গ্রাহক সংখ্যা মাত্র ১২ লাখের মত।

"ভারতেও কিন্তু রাষ্টায়ত্ব কোম্পানীর মাধ্যমে ছয় মাস ধরে পরীক্ষা করা হয়েছিল। আমাদের ছয় মাসও লাগবে না। টেলিটককে এককভাবে ব্যবসার সুবিধা দেয়া হচ্ছে না।"

সুনীল কান্তি বোস, টেলিযোগাযোগ সচিব

থ্রিজি প্রযুক্তি চালু হওয়ার ফলে এর গ্রাহকরা আরও দ্রুতগতিতে তাদের মোবাইল ফোনে ইন্টারনেট ব্যবহারের সুবিধে পাবেন।

মুজিবর রহমান বলেছেন, এই পর্যায়ে গ্রাহকরা মোবাইল ফোনে ইন্টারনেট থেকে অনেক দ্রুতগতিতে ডাটা বা তথ্য ডাউনলোড করতে পারবেন। এছাড়া, কিছু টেলিভিশন চ্যানেল দেখা যাবে এবং ভিডিও টেলিফোনি ব্যবহারের সুবিধে পাওয়া যাবে।

গ্রাহক সংখ্যার বিচারে টেলিটক অন্যান্য মোবাইল অপারেটরের তুলনায় অনেক ছোট হলেও শুধুমাত্র তাদেরই এই সুবিধে চালুর সুযোগ দেওয়া নিয়ে ইতিমধ্যেই বাংলাদেশে অনেক অসন্তোষ, সমালোচনা শোনা গেছে।

তবে সরকার এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের সচিব সুনীল কান্তি বোস বিবিসিকে বলেন, টেলিটককে দিয়ে এই প্রযুক্তি বানিজ্যিক ভিত্তিতে চালানোর পরীক্ষা করা হচ্ছে।

"ভারতেও কিন্তু রাষ্টায়ত্ব কোম্পানীর মাধ্যমে ছয় মাস ধরে পরীক্ষা করা হয়েছিল। আমাদের ছয় মাসও লাগবে না। টেলিটককে এককভাবে ব্যবসার সুবিধা দেয়া হচ্ছে না, তারা সবাইকে হারিয়ে দিয়ে দাঁড়িয়ে যাবে, এমন সম্ভাবনা নেই।"

টেলিটকের ব্যবস্থাপনা পরিচালকও বলেছেন, থ্রিজি সংক্রান্ত নীতিমালা চূড়ান্ত হলেই সবার জন্যই তা উন্মুক্ত করা হবে।

"গ্রাহকদের এই প্রযুক্তি গ্রহণ করারও ব্যাপার রয়েছে। ভারতে সাফল্যের যে প্রত্যাশা নিয়ে থ্রিজি সার্ভিস চালু করা হয়েছিল, সেই ধরনের সাফল্য কিন্তু এখনো আসেনি।"

তাহমিদ আজিজুল হক, গ্রামীণফোন

সরকারি সূত্রে জানা গেছে, এ বছরের শেষ নাগাদ নীতিমালা চূড়ান্ত হওয়ার কথা রয়েছে।

অদুর ভবিষ্যতে বাংলাদেশে থ্রিজি প্রযুক্তির সাফল্য নিয়েও অনেকে সন্দিহান।

গ্রামীণফোনের হেড অব কর্পোরেট অ্যাফেয়ার্স তাহমিদ আজিজুল হক বিবিসিকে বলেন, পুরো বিষয়টি নির্ভর করবে গ্রাহকের চাহিদা ও তাদের অগ্রাধিকারের ওপর।

"গ্রাহকদের এই প্রযুক্তি গ্রহণ করারও ব্যাপার রয়েছে। ভারতে সাফল্যের যে প্রত্যাশা নিয়ে থ্রিজি সার্ভিস চালু করা হয়েছিল, সেই ধরনের সাফল্য কিন্তু এখনো আসেনি।"

বাংলাদেশে স্মার্টফোন ব্যবহারের স্বল্পতাও একটা বাঁধা হিসাবে দাঁড়াতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন মি. হক।

সম্পর্কিত বিষয়

BBC © 2014 বাইরের ইন্টারনেট সাইটের বিষয়বস্তুর জন্য বিবিসি দায়ী নয়

কাসকেডিং স্টাইল শিট (css) ব্যবহার করে এমন একটি ব্রাউজার দিয়ে এই পাতাটি সবচেয়ে ভাল দেখা যাবে৻ আপনার এখনকার ব্রাউজার দিয়ে এই পাতার বিষয়বস্তু আপনি ঠিকই দেখতে পাবেন, তবে সেটা উন্নত মানের হবে না৻ আপনার ব্রাউজারটি আগ্রেড করার কথা বিবেচনা করতে পারেন, কিংবা ব্রাউজারে css চালু কতে পারেন৻