BBC navigation

বাংলাদেশে ঋণ জালিয়াতি নিয়ে আওয়ামী লীগে অস্বস্তি

সর্বশেষ আপডেট শুক্রবার, 7 সেপ্টেম্বর, 2012 17:55 GMT 23:55 বাংলাদেশ সময়
awami league flag

ঋণ জালিয়াতি নিয়ে দলে অস্বস্তি

বাংলাদেশের ব্যাংকিং খাতে সবচেয়ে বড় ঋণ জালিয়াতির বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগের কিছু নেতাও যেভাবে সরব হয়েছেন, তাতে এই ঘটনায় দলের মধ্যে অস্বস্তির আভাস পাওয়া যাচ্ছে।

আওয়ামী লীগের মাঠ পর্যায়ের অনেকেই বলছেন, ঘটনাটিকে ঘিরে তাদের সাধারণ মানুষের দিক থেকে নানান প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হচ্ছে।

সোনালী ব্যাংক থেকে সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা ঋণ জালিয়াতির এই ঘটনার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার দাবিও তুলেছেন তারা।

নির্বাচনকে সামনে রেখে বিষয়টা একটা নেতিবাচক হাতিয়ার হিসেবেও ব্যবহার হতে পারে বলেও তারা মনে করছেন।

তবে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের অনেকেই মনে করেন, হলমার্কসহ ছয়টি প্রতিষ্ঠানের সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকার বেশি নিয়মবহির্ভূতভাবে নেওয়ার এই ঘটনায় যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হলে নেতিবাচক পরিবেশ কেটে যাবে।

সোনালী ব্যাংক থেকে হলমার্ক গ্রুপের ঋণ জালিয়াতির ঘটনাকে ঘিরে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ এবং এর জোটের সিনিয়র সংসদ সদস্যদের ক্ষোভের প্রকাশ ঘটেছে সংসদে গত দু’দিনে।

"হলমার্ক অর্থ কেলেংকারির ঘটনা নিয়ে সাধারণ মানুষের নানান প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হচ্ছে। অনেক নেতিবাচক প্রশ্নও শুনতে হচ্ছে।"

আসলাম সরকার, রাজশাহী আওয়ামী লীগ

তবে আওয়ামী লীগের মাঠ পর্যায়ের নেতা কর্মীদের অনেকেই বলেছেন, যেহেতু তারা সরাসরি সাধারণ মানুষের মাঝে কাজ করেন, তাই তাদের বেশ অস্বস্তিতে পড়তে হচ্ছে।

উত্তরাঞ্চলের একটি বিভাগীয় শহর রাজশাহীতে আওয়ামী লীগের একজন নেতা আসলাম সরকার বলেছেন, ''হলমার্ক অর্থ কেলেংকারির ঘটনা নিয়ে সাধারণ মানুষের নানান প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হচ্ছে। অনেক নেতিবাচক প্রশ্নও শুনতে হচ্ছে।''

তবে তাদের দলের নেতাকর্মীদের মধ্যে কোনো বিভ্রান্তি নেই বলে তিনি দাবি করেছেন।

sonali bank

সোনালী ব্যাংক অর্থ কেলেংকারির ঘটনায় দল নেতারা নানা প্রশ্নের মুখে

দেশের দক্ষিণ পশ্চিমে যশোরের শার্শা উপজেলার চেয়ারম্যান এবং স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল মান্নানের মতে, সোনালী ব্যাংক থেকে অর্থ কেলেংকারির ঘটনা তাদের মারাত্মক এক পরিস্থিতির মুখোমুখি করেছে। নির্বাচনকে সামনে রেখে বিষয়টা আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে একটা রাজনৈতিক ইস্যূ হিসেবে ব্যবহার হতে পারে বলে তিনি মনে করেন।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহাবুবুল আলম হানিফও স্বীকার করেছেন, তাদের দলের নেতা কর্মীদের মধ্যে অস্বস্তি কাজ করছে। তবে একইসাথে তার বক্তব্য হচ্ছে, '' ঘটনার ব্যাপারে বিরোধীদল বিভ্রান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করছে।''

তবে বিশ্লেষকদের অনেকেই মনে করেন, সাম্প্রতিক সময়ে আর্থিকখাতে বেশ কয়েকটি দুর্নীতির ঘটনার ক্ষেত্রে সরকারের দিক থেকে যথাযথ পদক্ষেপের অভাব ছিল।

"ঘটনার ব্যাপারে বিরোধীদল বিভ্রান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করছে।"

মাহবুবুল আলম হানিফ, আওয়ামী লীগ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সৈয়দ মঞ্জুরুল ইসলাম বলেছেন, শেয়ারবাজার কেলেংকারির ঘটনায় তদন্তের ভিত্তিতে ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।

''পদ্মা সেতু নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ এবং সর্বশেষ হলমার্ক ঋণ কেলেংকারির ঘটনায় সরকারের পদক্ষেপ নেওয়ার ক্ষেত্রে স্বচ্ছতার অভাব রয়েছে। এসব কারণে আওয়ামীলীগ বা সরকারের গ্রহণযোগ্যতা প্রশ্নের মুখোমুখি হচ্ছে।'' বলেন সৈয়দ মঞ্জুরুল ইসলাম।

তিনি মনে করেন, হলমার্ক ঋণ কেলেংকারির ব্যাপারে কঠোর ব্যবস্থা নিয়ে সাধারণ মানুষের আস্থা অর্জনের দিকেই এখন সরকারের নজর দেওয়া উচিত।

আওয়ামী লীগ নেতা মাহাবুবুল আলম হানিফ অবশ্য বলেছেন, হলমার্ক অর্থ কেলেংকারির ঘটনায় অর্থ আদায় এবং আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার বিষয়ে সরকার অগ্রাধিকার দিচ্ছে। এই ব্যবস্থা নেওয়া হলে নেতিবাচক পরিবেশ কেটে যাবে বলে তারা মনে করছেন।

একই ধরনের খবর

BBC © 2014 বাইরের ইন্টারনেট সাইটের বিষয়বস্তুর জন্য বিবিসি দায়ী নয়

কাসকেডিং স্টাইল শিট (css) ব্যবহার করে এমন একটি ব্রাউজার দিয়ে এই পাতাটি সবচেয়ে ভাল দেখা যাবে৻ আপনার এখনকার ব্রাউজার দিয়ে এই পাতার বিষয়বস্তু আপনি ঠিকই দেখতে পাবেন, তবে সেটা উন্নত মানের হবে না৻ আপনার ব্রাউজারটি আগ্রেড করার কথা বিবেচনা করতে পারেন, কিংবা ব্রাউজারে css চালু কতে পারেন৻