সৌরশক্তির বিমানের সফল পরীক্ষা সম্পন্ন

Solar Impulse

সৌরশক্তিচালিত সোলার ইমপালস্

পরীক্ষামূলক একটি সৌরশক্তিচালিত বিমান আকাশে টানা প্রায় ২৬ ঘন্টা ওড়ার পর সুইটজারল্যান্ডে সফলভাবে অবতরণ করেছে৻

সোলার ইমপালস নামে এই বিমানটির ডানায় যে সেল ছিল, তার সাহায্যে এটি ওড়ার সময় সূর্য থেকে শক্তি আহরণ করেছে, এবং পুরো যাত্রায় এটি একফোঁটা জ্বালানি তেলও ব্যবহার করেনি৻

এই বিমানের উদ্ভাবকরা বলছেন, যে প্রযুক্তি ও যে ধরনের হালকা সামগ্রী এতে ব্যবহার করা হয়েছে, তা বিমান পরিবহন শিল্পে বিপ্লব এনে দিতে পারে৻

সুইস রাজধানী বার্ণের কাছে বৃহস্পতিবার সকালে অবতরণ করা সোলার ইমপালস তার বিশাল ডানায় বসানো ১২ হাজার সৌরপ্যানেলে যে সৌরজ্বালানী সঞ্চয় করে তা দিয়ে বিমানটি রাতের বেলাও আকাশে উড়তে সক্ষম হয়৻ বিমানটি যখন সকালে অবতরণ করে তখনও বিমানের ব্যাটারিতে আরো ৩ ঘন্টা ওড়ার মত শক্তি সঞ্চিত ছিল৻

নতুন প্রযুক্তি ব্যবহার করে আমরা জীবাশ্ম জ্বালানীর ব্যবহার কমাতে পারি৻ এখন আমরা সেটাই প্রমাণ করে দেখালাম৻

‌উদ্ভাবক বাট্রান্ড পিকার্ড

এই প্রকল্পের সুইস উদ্ভাবক, বাট্রান্ড পিকার্ড বলেছেন বারবার ব্যবহারযোগ্য জ্বালানী দিয়ে কী করা সম্ভব এই পরীক্ষামূলক ফ্লাইট তারই প্রমাণ৻

‘এটা শুধু এই বিশেষভাবে তৈরী বিমানটির সাফল্যই নয়, এটা একটা সফল বার্তা তুলে ধরেছে, একটা উদ্যমের সাফল্য এটা৻ বহু বছর ধরেই আমরা দাবি করে আসছিলাম, নতুন প্রযুক্তি ব্যবহার করে আমরা জীবাশ্ম জ্বালানীর ব্যবহার কমাতে পারি৻ এখন আমরা সেটাই প্রমাণ করে দেখালাম৻`

মিঃ পিকার্ড বলেছেন সাত বছর ধরে প্রকোশলী, কারিগর, উপদেষ্টা ও সহযোগীদের নিয়ে এই প্রকল্প গড়ে তোলা হয়েছে৻ তবে এই বিশেষ বিমানে আপাতত শুধু একজন চালকেরই বসার ব্যবস্থা আছে৻

এই পরীক্ষামূলক ফ্লাইটে বিমানটির চালক ছিলেন আঁন্দ্রে বর্শবার্গ, যিনি বলছেন, ‘এয়ারবাস আয়তনের এই বিশেষ বিমানের ওজন একটা মাঝারি সাইজের মোটরগাড়ির মত, কিন্তু এর শক্তি একটা ছোট মোটরসাইকেলের সমান৻ কাজেই এই বিমান চালাতে খুবই সূক্ষ্ম ও নিখুঁত মাপজোখ প্রয়োজন৻ সেদিকে সবসময় খেয়াল রাখাটাই ছিল সবচেয়ে কঠিন৻‘

Piccard and Borschberg

সফল অবতরণের পর উচ্ছ্বসিত বাট্রান্ড পিকার্ড ও আঁন্দ্রে বর্শবার্গ

‌এই বিমান এখন ঘন্টায় মাত্র ৭০ কিলোমিটার গতিতে ওড়ার মত শক্তি সংগ্রহ করেছে৻

টেঁকসই অর্থনীতি, আর টেঁকসই বিশ্ব যদি আমরা চাই, পাশাপাশি যদি চাই কোম্পানিগুলোর মুনাফা, মানুষের কর্মসংস্থান, তাহলে দূষণমুক্ত এই প্রযুক্তির দিকেই আমাদের ঝুঁকতে হবে৻‘

বাট্রান্ড পিকার্ড

চালক বর্শবার্গ বলছেন আরো বেশি শক্তির বিমান তৈরি করাই হবে তাদের পরবর্তী পরিকল্পনা, যে বিমান সারা দুনিয়া চক্কর দিতে পারবে৻ উদ্ভাবক বাট্রান্ড পিকার্ড ১৯৯৯ সালে প্রথম বেলুনে বিরামহীন বিশ্ব পরিক্রমা করেছিলেন৻ তাঁর পরবর্তী লক্ষ্য ২০১৩ সালে সৌরশক্তির বিমান নিয়ে বিশ্বপরিক্রমা৻ তিনি বলছেন, পুর্নব্যবহারযোগ্য এই জ্বালানীপ্রযুক্তি খুবই গুরুত্বপূর্ণ৻

‘এই সাফল্যকে এখন অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক দুনিয়ায় ছড়িয়ে দিতে হবে৻ তাদের বোঝাতে হবে টেঁকসই অর্থনীতি, আর টেঁকসই বিশ্ব যদি আমরা চাই পাশাপাশি যদি চাই কোম্পানিগুলোর মুনাফা, মানুষের কর্মসংস্থান, তাহলে দূষণমুক্ত এই প্রযুক্তির দিকেই আমাদের ঝুঁকতে হবে৻‘

মিঃ পিকার্ড বলছেন এর জন্য জীবাশ্ম জ্বালানীর ওপর নির্ভরতা কমাতে হবে৻

তিনি আশা করছেন এই সৌর জ্বালানী প্রযুক্তি ভবিষ্যতে কম্প্যুটার থেকে কাপড় ধোওয়ার মেশিন পর্যন্ত মানুষের দৈনন্দিন সব কাজে ব্যবহার করার পথে এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ৻

সর্বশেষ সংবাদ

অডিও খবর

ছবিতে সংবাদ

বিশেষ আয়োজন

BBC navigation

BBC © 2014 বাইরের ইন্টারনেট সাইটের বিষয়বস্তুর জন্য বিবিসি দায়ী নয়

কাসকেডিং স্টাইল শিট (css) ব্যবহার করে এমন একটি ব্রাউজার দিয়ে এই পাতাটি সবচেয়ে ভাল দেখা যাবে৻ আপনার এখনকার ব্রাউজার দিয়ে এই পাতার বিষয়বস্তু আপনি ঠিকই দেখতে পাবেন, তবে সেটা উন্নত মানের হবে না৻ আপনার ব্রাউজারটি আগ্রেড করার কথা বিবেচনা করতে পারেন, কিংবা ব্রাউজারে css চালু কতে পারেন৻